বৃহস্পতিবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২১, ০৬:৫৬ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
চান্দিনা মহিলা বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের অধ্যাপক মোঃ জাহাঙ্গীর আলম নৌকার মনোনয়নপত্র ক্রয় করেছেন কুমিল্লার দেবিদ্বার রাজামেহার ডেনমার্ক প্রবাসীর বাড়িতে চাঁদা দিতে রাজি না হওয়া বাড়িঘর ভাঙচুর মৃত্যুর হুমকি অভিযোগ উঠেছে চান্দিনায় উপজেলা আওয়ামীলীগের বর্ধিত সভা: ইউপি নির্বাচনে সম্ভাব্য প্রার্থীদের প্রস্তুতি নিতে নির্দেশনা কুমিল্লার বরুড়ায় চার  চেয়ারম্যান প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল ঘোষণা। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ চট্টগ্রাম বিভাগীয় সাংগঠনিক টিমের সঙ্গে কুমিল্লা উওর জেলা আওয়ামী লীগ কুমিল্লার চান্দিনায় অবৈধভাবে ডিস সংযোগ ব্যবহার করা সোহাগ কেবল নেটওয়ার্ককে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা কুমিল্লার চান্দিনায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর এর খুনি কর্নেল রশিদ এর পরিবার স্বেচ্ছাসেবক লীগের কমিটির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য কুমিল্লার চান্দিনায় পুলিশের বিরুদ্ধে এলাকাবাসীর মানববন্ধন কুমিল্লা চান্দিনা মহিচাইল ইউনিয়নের এর বিভিন্ন গ্রামে অভিযান পরিচালনা করে থেকে ৬ মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেপ্তার করেছে চান্দিনা থানার পুলিশ, দেবপুর ফাঁড়ি পুলিশের অভিযানে ডাকাতির সরঞ্জাম সহ ৩ ডাকাত আটক। পলাতক অনেকে । পলাতক আসামীদের নাম নিচে দেওয়া আছে ।
ব্রেকিং নিউজ :

কুমিল্লার চান্দিনায় পুলিশের বিরুদ্ধে এলাকাবাসীর মানববন্ধন

  1. চান্দিনায় পুলিশের বিরুদ্ধে এলাকাবাসীর মানববন্ধন

    চান্দিনা (কুমিল্লা) প্রতিনিধি।
    কুমিল্লার চান্দিনা থানায় কর্মরত উপ-পরিদর্শক (এস.আই) আব্দুস সুলতানকে প্রত্যাহারের দাবীতে মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী।
    বুধবার (২৭ অক্টোবর) দুপুর সাড়ে ১২টায় চান্দিনা থানার সামনে ওই মানববন্ধন করে শতাধিক এলাকাবাসী। মানববন্ধনে ওই পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে এক লক্ষ টাকা ঘুষ দাবী এবং কাঙ্খিত টাকা দিতে না পারায় ভিকটিমের বিরুদ্ধে আদালতে মিথ্যা প্রতিবেদন দাখিল করার অভিযোগ এনে ওই মানববন্ধন করে তারা। এসময় ওই পুলিশ কর্মকর্তাকে দ্রুত অপসরণসহ আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট দাবী জানানো হয়।
    জানা যায়, গত ২৫ জুলাই চান্দিনার তুলাতলী গ্রামে জমি সংক্রান্ত বিরোধে প্রতিপক্ষের হামলায় মারাত্মক আহত হয় নূরুল আমিন সোহাগ, তার পিতা রুহুল আমিন ও ছোট ভাই নাঈম। ঘটনার পর সোহাগ এর স্ত্রী রোজিনা আক্তার বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেন। ওই সময় প্রতিপক্ষরা থানায় কাউন্টার মামলা করতে গেলে থানার ওসি সহ তদন্ত কর্মকর্তাগণ তাদের অভিযোগের কোন সত্যতা না পাওয়ায় মামলা গ্রহণ করেননি। পরবর্তীতে প্রতিপক্ষরা আদালতে পৃথক ২টি মামলা দায়ের করেন। ওই ২টি মামলাই চান্দিনা থানাকে তদন্ত দেয়। এর মধ্যে এক মামলার তদন্ত কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক (এস.আই) আব্দুস সুলতান সঠিক রিপোর্ট দেওয়ার জন্য ভিকটিম সোহাগ এর কাছ থেকে ১ লক্ষ টাকা ঘুষ দাবী করেন। সোহাগ এক লক্ষ টাকা দিতে না পারলে প্রতিপক্ষের কাছ থেকে মোটা অঙ্কের টাকা নিয়ে ভিকটিমের বিরুদ্ধেই আদালতে প্রতিবেদন জমা দেন।
    আহত নূরুল আমিন সোহাগ জানান, আমার মাথায় ৪টি কোপ লাগে। আমাকে রাজধানীর শেখ হাসিনার বার্ণ ইউনিটে ২১২টি সেলাই দিয়ে প্রাণ বাঁচায়। এ পর্যন্ত আমার মামলায় কাউকে গ্রেফতার করা হয়নি, আসামীরা আদালত থেকে জামিন নিয়ে আমার বিরুদ্ধে পরপর ২টি উল্টো মামলা দায়ের করে। ওই মামলায় সঠিক রিপোর্ট দেওয়ার জন্য এস.আই সুলতান আমার কাছ থেকে এক লক্ষ টাকা ঘুষ দাবী করে। আমি গত ১৪ অক্টোবর ২০ হাজার টাকা দেই। তখন এস.আই সুলতান বলেন, ‘ওই পক্ষ তো দুই লাখ দিতে রাজি’। আমি আর কোন টাকা দিতে পারবো না বলে থানা থেকে চলে আসি। গত ১৯ অক্টোবর এস.আই সুলতান বলেন, ‘সঠিক রিপোর্ট দিয়েছি, আরও টাকা দিতে হবে’। আমি বাধ্য হয়ে ২০ অক্টোবর সকালে আরও ৫ হাজার টাকা দেই। পরবর্তীতে আদালত থেকে ওই রিপোর্ট এনে দেখি এস.আই সুলতান আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা বানোয়াট রিপোর্ট দেওয়ায় বিজ্ঞ আদালত আমার নামে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারি করে! আমি এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত এবং এস.আই সুলতান এর বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করার দাবী জানাই।
    এ ব্যাপারে অভিযুক্ত উপ-পরিদর্শক (এস.আই) আব্দুস সুলতান জানান, উভয় পক্ষের মারামারিতে সোহাগ মারাত্মক আহত হয় সেটা বাস্তব। তবে প্রতিপক্ষরাও আহত হয়। রিপোর্টটি তাদের পক্ষে যায়নি বলেই তারা আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছে।
    চান্দিনা থানার অফিসার ইন-চার্জ (ওসি) মোহাম্মদ আরিফুর রহমান জানান, এস.আই সুলতান এর বিরুদ্ধে ভিকটিম সোহাগ এর অভিযোগটি জেনেছি। উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা করে যথাথ ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Our Like Page

প্রযুক্তি সহায়তায় Freelancer Zone