বৃহস্পতিবার, ২১ অক্টোবর ২০২১, ১১:৪৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
কুমিল্লার বরুড়ায় উত্তর খোশবাস ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের কাউন্সিল ভোটে এগিয়ে আছেন কুমিল্লার চান্দিনায় কাভার্ডভ্যানের চাপায় তরুণ নিহত ফেনীতে মন্দিরে নাশকতাকারীর মূলহোতা আটক কুমিল্লার চান্দিনায় বাতিজাকে ফাঁসানোর জন্য নিজ সন্তান সালমা আক্তার কে কুপিয়ে হত্যা করায় বাবা সহ চারজনকে আটক করেছে পুলিশ মোঃ আশিকুল রহমান রাসেল কুমিল্লার চান্দিনা উপনির্বাচন উপলক্ষে আওয়ামী লীগ দলীয় একক প্রার্থী হিসাবে মুনতাকিম আশরাফ টিটু মনোনয়ন পেপার সংগ্রহ টিকটক ভিডিও ও প্রেমে বাধা দেয়ায় স্কুলছাত্রীর আত্মহত্যা!! কুমিল্লার চান্দিনায় ৭ উপনির্বাচন উপলক্ষে শ্রীমন্তপুর উচ্চ বিদ্যালয় বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে কুমিল্লা-৭ আসনের উপ-নির্বাচন আগামী ৭ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হবে। আইসিইউ’তে অধ্যাপক আলী আশরাফ এমপি: রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী; পরিবারের পক্ষ থেকে দোয়া প্রার্থনা
ব্রেকিং নিউজ :

এফবিসিসিআইয়ে দ্যুতি ছড়ানো এক নাম শেখ ফাহিম

যিনি কাজ করেন, তিনি করে দেখান। যারা করেনা, তারা বলতে পছন্দ করে। কথা বলার লোক নয়, দরকার কাজের লোকের। কথা এবং কাজের সমন্বয় সাধন করে যিনি দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন তিনি এফবিসিসিআইয়ের সফল সভাপতি শেখ ফজলে ফাহিম। দেশের উন্নয়ন,ব্যবসায়ীক উন্নয়ন, সর্বোপরি ব্যবসা বান্ধব পরিবেশ সৃষ্টি করার মধ্য দিয়ে তিনি এফবিসিসিআইকে যিনি আজ নিয়ে গেছেন অনন্য এক উচ্চতায় ।

৪৮ বছরের পথচলায় নতুন উচ্চতায় এখন ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রিজ। এর নেপথ্যে কারিগর হলেন এফবিসিসিআইর বর্তমান সভাপতি অসাধারণ প্রতিভার অধিকারী শেখ ফজলে ফাহিম।

তিনি এফবিসিসিআইর উন্নয়নে সর্বোচ্চ গতি এনেছেন। দায়বোধ, একাগ্রতা এবং এ্যকশন প্ল্যান তৈরি করার মধ্য দিয়ে এফবিসিসিআইতে এক স্বর্ণযুগের সূচনা করেছেন তিনি। এফবিসিসিআইর উন্নয়নে তার অসামান্য প্রতিভা ইতোমধ্যে সবার হৃদয় জয় করেছে। অসাধারণ প্রতিভাধর এই তরুণ সৎ নেতার দেখানো পথ ধরেই ব্যবসায়ীদের এই শীর্ষ সংগঠন আগামীতে আরও অনেকদূর এ গিয়ে যাবে বলে প্রত্যাশা করছেন এফবিসিসিআইর সাধারণ সদস্যরা।

আগামী ৫ মে (২০২১-২০২৩) অনুষ্ঠিত হচ্ছে এফবিসিসিআই দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন। নির্বাচন বরাবরের মতোই উৎসবমুখর হবে। এই নির্বাচনের দিকে দৃষ্টি থাকে সারাদেশের। যথারীতি নির্বাচন আসলে যোগ্য প্রার্থীর অভাব দেখা যায়না। তবে, প্রতিকুল স্রোতের বিরুদ্ধে দাঁড় বেয়ে নৌকা চলা চট্টিখানি কথা নয়। ক্লান্তিহিন সেই বৈরি স্রোতের মোকাবেলা করেছেন শেখ ফজলে ফাহিম। সদস্যরা বলছেন, সারাদেশের ব্যবসায়ীদের স্বার্থ সংরক্ষণ, করোনাকালীণ দুর্যোগে ব্যবসায়ীদের পাশে দাঁড়িয়ে দেশের উন্নয়ন অগ্রগতির ধারাবাহিতায় এফবিসিআইয়ের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করা হয়েছে। এবারই প্রথম দেশব্যাপী চেম্বারের জরিমানাসহ বার্ষিক ফি মওকুপ করার ঘোষণা এফবিসসিআইয়ের এক যুগান্তকারী পদক্ষেপ। এই ঘোষণার পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যবসায়ীদের প্রশংসায় ভাসেন এফবিসিসিআইয়ের সভাপতি শেখ ফজলে ফাহিম। এই ঘোষণার পর সারাদেশের ব্যবসায়ীদের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ- উদ্দীপনা লক্ষ্য করা যায়।

এদিকে, নির্বাচন নিয়ে বিশ্লেষকরা বলছেন আগামী নির্বাচনে যিনি সভাপতি,পরিচালক কিংবা অধিকাংশ জিবি, মেম্বার হবেন-একবিংশ শতাব্দীর ব্যবসায়িক চ্যালেঞ্জ মোকাবেলার তাদেরকে দূরদর্শিতার স্বাক্ষর রাখতে হবে। সুনির্দীষ্ট পরিকল্পনা নিয়ে দেশের কর্মক্ষম ৭ কোটি মানুষকে কাজে লাগাতে হবে। ব্যবসায়ীদের স্বার্থের সাথে দেশের সার্বিক অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডে যুগপৎ অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে হবে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক শীর্ষ একজন ব্যবসায়ী নেতা বলেন, বুলি আওরিয়ে নয়, কাজের মধ্য দিয়ে অতীতের যেকোনো সময়ের চাইতে এফবিসিসিআই এখন বেশি শক্তিশালী। অপর এক ব্যবসায়ী নেতা বলেন, নির্বাচন আসলে শুরু হয় নোংড়া রাজনীতি। সুতরাং নেতৃত্বের ব্যাপারে বিশেষ সজাগ দৃষ্টি রাখতে হবে।

এফবিসিসিআইর উন্নয়নে শেখ ফজলে ফাহিমই হবেন পরবর্তী নেতাদের অনুপ্রেরণা। এমনটি ভাবছেন ব্যবসায়ীরা। যুক্তি দেখিয়ে ব্যবসায়ীরা বলছেন- দুই বছর মেয়াদে এফবিসিসিআইর সভাপতি থাকাকালীন সময়ে ব্যবসায়ীদের উন্নয়ন ও কল্যাণে নানা কার্যক্রম বাস্তবায়ন করেছেন শেখ ফজলে ফাহিম। শুধু তাই নয়, তিনি একটি সংগঠনকে অধিকতর কার্যক্ষম করতে যে ধরনের যোগ্য নেতৃত্ব দরকার তার সবটিতে সফলতার স্বাক্ষর রেখেছেন তিনি। তার যোগ্য ও দক্ষ নেতৃত্বের কারণে অতি অল্প সময়ে এফবসিসিআইকে তিনি স্থানীয় ও আন্তর্জাতিকভাবে একটি মর্যাদাপূর্ণ সংগঠনে দাঁড় করিয়েছেন।

তিনি এফবিসিসিআইর সভাপতির দায়িত্ব নেয়ার পর এফবিসিসিআইর মালিকানাধীন সম্পদ ৬০ মতিঝিল ও হাটখোলায় নির্মিত বহুতল ভবন এবং তার মালিকানা সংক্রান্তে দীর্ঘদিনের ফেলে রাখা সমস্যাগুলোর আইনগত সমস্যার সমাধান করেন। এছাড়া বিভিন্ন সংস্কার কার্যক্রমের মাধ্যমে এফবিসিসিআইর মতিঝিল ভবনের আধুনিকায়ন করে ভবনটিকে একটি আন্তর্জাতিক মানের অবয়ব দান করেন। যা অত্যন্ত দৃষ্টিনন্দন ও সব সদস্যের জন্য একটি গৌরবোজ্জ্বল অহংকার। তিনি ভবনকে আধুনিকায়ন করার পাশাপাশি এফবিসিসিআইর সব কর্মচারীদের বকেয়া পরিশোধ এবং ব্যয় সংকোচ নীতিমালা তৈরি করে সংগঠনে গতিশীল ও আধুনিক বিশ্বমানের এফবিসিসিআই সচিবালয় তৈরির উদ্যোগ নেন।

এছাড়াও প্রযুক্তির সর্বোচ্চ সুবিধা ব্যবহার করে বিশ্ব অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডে বাংলাদেশের ব্যবসায়ীদের ব্যাপক অংশগ্রহণের ব্যবস্থা করার পাশাপাশি সব সদস্যদের ব্যবসায় প্রসারের দিকনির্দেশনা তৈরিতে সহযোগিতা করতে Economy & Applied Research Center প্রতিষ্ঠা করেন তিনি। স্বল্প ব্যয় ও কম সময়ের মধ্যে দেশীয় ও আন্তর্জাতিক বাণিজ্য বিরোধ কার্যক্রম নিষ্পত্তি করতে Alternative Disputes Resolution (ADR) Center প্রতিস্থাপন করা এবং এফবিসিসিআই ভবনে Tech Center কার্যক্রম পরিচালনা শুরু করেন। গত বছরের ৬ ডিসেম্বর হতে এটি সফট লঞ্চ করা হয়েছে। যা বর্তমান প্রেসিডেন্ট শেখ ফজলে ফাহিমের ব্যক্তিগত চিন্তার প্রতিফলন। এছাড়া এফবিসিসিআইতে আন্তর্জাতিক মানের বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের বিশেষ উদ্যোগ গ্রহণ করেন তিনি।

শেখ ফজলে ফাহিম তার দুই বছরের মেয়াদ কার্যকালে এফবিসিসিআইর চলমান বোর্ড ও শক্তিশালী সচিবালয়কে নিয়ে SDG Goal এবং ডিসেন্ট ওয়ার্ক অ্যান্ড ইকোনমিক গ্রোথ, ইন্ডাস্ট্রি, ইনোভেশন ও ইনফাস্ট্রাকচার অর্জনে কাজ করে যাচ্ছেন। এসব লক্ষ্য উদ্দেশ্য বাস্তবায়নে চলমান করোনা ভয়াবহ পরিস্থিতিতে এক মুহ‚র্তের জন্যও তিনি ব্যবসায়ীদের কল্যাণে ও তাদের পাশে থাকতে পিছপা হননি। ভ্যাট ট্যাক্স আদায়ে সরকারকে সহনশীল আচরণ দেখানোর পরামর্শ দিয়ে আসছেন। সততা ও সদিচ্ছা থাকলে যে কোনো কঠিন কাজকে সুচারুরূপে সম্পন্ন করা যায় তার উজ্জ্বল দৃষ্টান্তের স্বাক্ষর রেখেছেন তিনি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Our Like Page

প্রযুক্তি সহায়তায় Freelancer Zone