সোমবার, ১৪ জুন ২০২১, ০৫:০৯ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
কুমিল্লা চান্দিনা উপজেলা জোয়াগ ইউনিয়নের কুখ্যাত মাদক ব্যবসায়ী ও চোরাকারবারি ইউনূসকে মাদক সহ গ্রেপ্তার কুমিল্লার চান্দিনা পৌরসভার ভারপ্রাপ্ত মেয়রের দায়িত্ব পালন করছেন মোঃ আব্দুর রব কাউন্সিলর, কুমিল্লার চান্দিনা পৌরসভার ভারপ্রাপ্ত মেয়রের দায়িত্ব পালন করছেন মোঃ আব্দুর রব কাউন্সিলর, চট্টগ্রাম রেঞ্জের ১১ জেলার ৫০ জন সার্কেল অফিসারের শ্রেষ্ঠ সার্কেল অফিসার (২য়) নির্বাচিত হয়েছেন কুমিল্লার দাউদকান্দি সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মোঃ জুয়েল রানা। কুমিল্লার চান্দিনায় ৪ কেজি গাঁজাসহ তিন মহিলা মাদক ব্যবসায়ী আটক মুরাদনগরে ভাতিজার রডের আঘাতে চাচা নিহত আটক ১ কুমিল্লার চান্দিনা ডাকাতির প্রস্তুতি কালে অস্ত্রসহ গ্রেফতার ৬ কুমিল্লার দাউদকান্দি বিপুল পরিমাণে পলিথিন জব্দ করেছে সহকারী পুলিশ সুপার কুমিল্লার চান্দিনায় ১৩ টি ইউনিয়নে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উপহার এাণ সামগ্রী বিতরণ করেছেন সংসদ সদস্য আলী আশরাফ এমপি কুমিল্লার চান্দিনায় প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক মুজিববর্ষের ঘর পরিদর্শন করেছেন চান্দিনার মাননীয় সংসদ সদস্য সাবেক ডেপুটি স্পিকার অধ্যাপক জনাব মোঃ আলী আশরাফ এমপি
ব্রেকিং নিউজ :

স্বামী কর্তৃক স্ত্রীকে শ্বাসরোধ করিয়া হত্যা করার রহস্য উদঘাটন।

স্বামী কর্তৃক স্ত্রীকে শ্বাসরোধ করিয়া হত্যা করার রহস্য উদঘাটন

বিল্লাল মাসুম কচুয়া
চাঁদপুর এর কঁচুয়া থানার এফ আই আর নং-১৬, তারিখ- ১৫/০২/২০২১; ধারা-৩০২ পেনাল কোড এর এজাহার নামীয় একমাত্র আসামীঃ- মোঃ শাহাদাত হোসেন (৩২), পিতা- আঃ মান্নান, মাতা- শিরতাজ বেগম স্থায়ী : গ্রাম- মনপুরা (হাজী বাড়ী) , থানা- কঁচুয়া, জেলা-চাঁদপুরকে কচুয়া থানা পুলিশ কর্তৃক গ্রেফতার করিয়া অদ্য ১৬/০২/২০২১ইং তারিখে যথাযথ পুলিশ পাহারায় বিজ্ঞ আদালতে প্রেরণ করা হয়। গ্রেফতারকৃত আসামী বিজ্ঞ আদালতে ফৌঃ কাঃ বিঃ ১৬৪ ধারা মতে জবানবন্দি প্রদান করে যে, তাহার ২য় স্ত্রী- মৃত লাভলী আক্তার (২২),পিতা-আঃ মান্নান, সাং-মনপুরা (হাজী বাড়ী), থানা-কচুয়া, জেলা-চাঁদপুর এর সাথে গত ১৪/০২/২০২১ইং তারিখ বিকাল অনুমান ০৪:০০ ঘটিকার সময় ঢাকা হইতে কচুয়া নিজ বাড়ীর উদ্দেশ্যে রত্তয়ানা করিয়া অত্র মামলার ঘটনাস্থলে অনুমান ০৭:১৫ ঘটিকার সময় আসিয়া পৌছায়। ঘটনাস্থল কচুয়া থানাধীন বাছাইয়া সাকিনস্থ মেসার্স শায়েস্তা ইসলাম ব্রিকস ফিল্ড এর ৩০০ গজ দক্ষিন-পশ্চিম পাশে পুকুরের পাশে জমির কোনে আসার পরে তাহারা উভয়ে পারিবারিক বিভিন্ন বিষয়াদি নিয়া কথাকাটাকাটি শুরু করে। কথাকাটাকাটির একপর্যায়ে ভিকটিম লাভলী আক্তার পায়ে হেঁটে জমির মাঝখান দিয়ে মামলার ঘটনাস্থলে পৌছাইয়া আত্মহত্যা করিয়া আসামীকে মামলাতে ফাঁসানোর বিভিন্ন ধরণের ভয়-ভীতি প্রদর্শন করে। একপর্যায়ে আসামী লোকজন জানাজানি হলে পুলিশ কেইসের ভয়ে এবং পারিবারিক কলহের কারণে ক্ষিপ্ত হইয়া ভিকটিম লাভলী আক্তার এর গলায় দুই হাত দিয়া চাপিয়া ধরিয়া শ্বাসরোধ করতঃ প্রাণে হত্যা করিয়া ঘটনাস্থল হইতে ঢাকায় চলিয়া যায়। পরে ১৫/০২/২০২১ইং তারিখে আসামী পূনরায় শ্বশুড় বাড়ী আসিয়া নিজেও তাহার স্ত্রী মৃত লাভলী আক্তারকে খোঁজাখুঁজি শুরু করে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Our Like Page

প্রযুক্তি সহায়তায় Freelancer Zone